7.5% GDP growth target set for fiscal 2023

English
বাংলা
The government has set an ambitious economic growth target of 7.5 per cent for the next fiscal year although the country faces new headwinds owing to higher prices of commodities globally and is still recovering from the shocks of the coronavirus pandemic.

It also maintained its previous projection of gross domestic product growth of 7.2 per cent for the current fiscal year, ending in June.

The growth projection was shared yesterday at a meeting of the Fiscal Coordination Council chaired by Finance Minister AHM Mustafa Kamal. Top officials of the finance ministry, the Bangladesh Bank and other ministries were present.

"Such target is achievable," said State Minister for Planning Prof Shamsul Alam.

"We set the target after analysing everything, including the country's economic ability and taking into account the mega projects that would be implemented by this time. We will continue our efforts to achieve the goal."

The growth target is higher than the forecasts by the World Bank and the Asian Development Bank.

The WB has projected that Bangladesh's GDP would grow by 6.7 per cent in FY23, while the ADB expected the economy to expand by 7.1 per cent.

Prof Alam said attaining the goal would be possible if the international situation does not deteriorate.

He termed the Russia-Ukraine war a big problem and blamed the conflict for rising inflation.

"But we still think that the way our economic activities are going on, achieving the growth target is possible."

At the meeting of the coordination council, the inflation rate for FY23 was projected at 5.5 per cent.

When the budget for the current fiscal year was unveiled in June last year, the inflation goal was set at 5.3 per cent. It was later revised upwards to 5.7 per cent as prices went up for a combination of multiple factors.

Inflation jumped to 6.17 per cent in February, the highest in 16 months, driven by soaring costs of foods.

Prof Alam said the government would try to curb inflation gradually. "But it is also true that this will depend on the global situation."

The inflation outlook has worsened due to the war in Ukraine and associated sanctions that resulted in higher global commodity prices, said the WB in its latest report on Bangladesh.

"Though domestic crop production is expected to remain resilient, food prices may increase further if the government increases domestic energy and fertilizer prices."

Non-food prices are likely to remain elevated as well, driven by an increase in transportation costs and the knock-on effects on other products, said the WB.

According to the government's projection, the size of the economy would be $512 billion, or Tk 44,12,849 crore in FY23, while it was Tk 38,95,483 crore in FY22.

Source:  Thedailystar.net
সরকার আগামী অর্থবছরের জন্য 7.5 শতাংশের একটি উচ্চাভিলাষী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে যদিও বিশ্বব্যাপী পণ্যের উচ্চ মূল্যের কারণে দেশটি নতুন মাথাব্যথার মুখোমুখি হয়েছে এবং এখনও করোনভাইরাস মহামারীর ধাক্কা থেকে পুনরুদ্ধার করছে।
এটি জুনে শেষ হওয়া চলতি অর্থবছরের জন্য 7.2 শতাংশের মোট দেশীয় পণ্য বৃদ্ধির পূর্ববর্তী অনুমানও বজায় রেখেছে।
গতকাল অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালের সভাপতিত্বে রাজস্ব সমন্বয় পরিষদের বৈঠকে প্রবৃদ্ধির প্রক্ষেপণ শেয়ার করা হয়। এ সময় অর্থ মন্ত্রণালয়, বাংলাদেশ ব্যাংকসহ অন্যান্য মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী অধ্যাপক শামসুল আলম বলেন, এ ধরনের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনযোগ্য।
"দেশের অর্থনৈতিক সক্ষমতাসহ সবকিছু বিশ্লেষণ করে এবং এই সময়ের মধ্যে যে মেগা প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন করা হবে সেগুলো বিবেচনায় নিয়ে আমরা লক্ষ্য নির্ধারণ করেছি। লক্ষ্য অর্জনে আমরা আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখব।"

প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা বিশ্বব্যাংক ও এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের পূর্বাভাসের চেয়ে বেশি।

WB অনুমান করেছে যে FY23-এ বাংলাদেশের জিডিপি 6.7 শতাংশ বৃদ্ধি পাবে, যখন ADB আশা করেছিল যে অর্থনীতি 7.1 শতাংশ প্রসারিত হবে।

অধ্যাপক আলম বলেন, আন্তর্জাতিক পরিস্থিতির অবনতি না হলে লক্ষ্য অর্জন সম্ভব হবে।

তিনি রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধকে একটি বড় সমস্যা হিসেবে অভিহিত করেছেন এবং ক্রমবর্ধমান মুদ্রাস্ফীতির জন্য এই সংঘাতকে দায়ী করেছেন।

"তবে আমরা এখনও মনে করি যে আমাদের অর্থনৈতিক কার্যক্রম যেভাবে চলছে তাতে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা অর্জন সম্ভব।"

সমন্বয় পরিষদের সভায়, FY23-এর মূল্যস্ফীতির হার 5.5 শতাংশে অনুমান করা হয়েছিল।

গত বছরের জুনে যখন চলতি অর্থবছরের বাজেট উন্মোচন করা হয়েছিল, তখন মূল্যস্ফীতির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছিল ৫.৩ শতাংশ। এটি পরে 5.7 শতাংশে সংশোধিত হয়েছিল কারণ একাধিক কারণের সংমিশ্রণের জন্য দাম বেড়েছে।

ফেব্রুয়ারী মাসে মূল্যস্ফীতি লাফিয়ে 6.17 শতাংশে পৌঁছেছে, যা 16 মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ, খাবারের দাম বৃদ্ধির কারণে।

অধ্যাপক আলম বলেন, সরকার ধীরে ধীরে মূল্যস্ফীতি রোধে চেষ্টা করবে। "তবে এটিও সত্য যে এটি বিশ্ব পরিস্থিতির উপর নির্ভর করবে।"

ইউক্রেনের যুদ্ধ এবং এর সাথে সম্পর্কিত নিষেধাজ্ঞার কারণে মূল্যস্ফীতির দৃষ্টিভঙ্গি আরও খারাপ হয়েছে যার ফলে বিশ্বব্যাপী পণ্যের দাম বেড়েছে, ডব্লিউবি বাংলাদেশ সম্পর্কে তার সর্বশেষ প্রতিবেদনে বলেছে।

"যদিও দেশীয় ফসলের উৎপাদন স্থিতিস্থাপক থাকবে বলে আশা করা হচ্ছে, সরকার যদি দেশীয় জ্বালানি ও সারের দাম বাড়ায় তাহলে খাদ্যের দাম আরও বাড়তে পারে।"

পরিবহন খরচ বৃদ্ধি এবং অন্যান্য পণ্যের উপর নক-অন প্রভাব দ্বারা চালিত অ-খাদ্যের দামও উচ্চতর থাকার সম্ভাবনা রয়েছে, WB বলেছে।

সরকারের অনুমান অনুযায়ী, অর্থনীতির আকার হবে $512 বিলিয়ন বা FY23 সালে 44,12,849 কোটি টাকা, যেখানে FY22 তে এটি ছিল 38,95,483 কোটি টাকা।
 

Recent Resources & Article

albd-logo